Thursday, June 13, 2024

বদির রাজত্ব ভাঙতে পারবেন কী তাঁরা?

শামীমুল ইসলাম ফয়সাল:

বহুল আলোচিত উখিয়া টেকনাফ আসনটিতে গত ১৫ বছরে টানা দুই মেয়াদে সংসদ সদস্য ছিলেন আব্দুর রহমান বদি। এরপর ২০১৮ সালেও তাঁর স্ত্রী শাহিন আকতার নৌকার মনোনয়ন নিয়ে সংসদ সদস্য হন। এরপর থেকেই উখিয়া ও টেকনাফের আওয়ামী লীগের নেতারা কয়েকভাগে ভাগ হয়ে যান, শুরু হয় নানা গ্রুপিং।

এরমধ্যে উখিয়া, টেকনাফ ও কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগনেতাসহ ৬ জনের একটি উপদল নিজেরাই আসনটি বদি থেকে পুনরুদ্ধারের জন্য ঐক্যবদ্ধ হন।

৬ জনের উপদলে আছেন, কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহসভাপতি রাজা শাহ আলম চৌধুরী, টেকনাফ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নুরুল বশর, সাধারণ সম্পাদক মাহাবুবু মোরশেদ, উখিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি কবি আদিল উদ্দিন চৌধুরী, বীর মুক্তিযোদ্ধা জাফর আলম চৌধুরী ও টেকনাফ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সদস্য সাইফু উদ্দিন খালেদ।

এদিকে এ ৬ জনের মধ্যে কবি আদিল উদ্দিন চৌধুরী ছাড়া বাকি ৫ জনই দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন। ৫ জনের সাথেই কথা হয় টিটিএনের, বদির বাইরে দল মনোনয়ন দিলে তাঁদের কারো একজনকেই দিবেন বলে আশাবাদী তাঁরা।

রাজা শাহ আলম চৌধুরী জানান, বদির বাইরে দল মনোনয়ন দিলে ৬ জনের গ্রুপ থেকে যে কাউকেই দিতে পারেন, আমরা আশাবাদী।

টেকনাফ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নুরুল বশর বলেন, তাঁরা ৬ জন ঐক্যবদ্ধ আছেন এবং ৬ জনের বাইরেও দল অন্য কাউকে মনোনয়ন দিলে নৌকার বিজয়ের জন্য এ ৬ জনও কাজ করবেন।

কিন্তু এখনো দলের হাইকমান্ড থেকে কাউকেই কোনো নিশ্চয়তা দেওয়া হয়নি বলে জানিয়েছেন মনোনয়নের জন্য আবেদনকারী প্রার্থীরা। তাই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়ানো নানান খবরগুলো অনেকটা মিথ্যা দাবী তাঁদের।

উখিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা বীর মুক্তিযোদ্ধা জাফর আলম চৌধুরী বলেন, এখন পর্যন্ত কাউকে কোনো সিগন্যাল ( নিশ্চয়তা) দেওয়া হয়নি, অনেকে কেন্দ্রে দৌঁড়ঝাপ করছেন, কিন্তু কাউকে সিগন্যাল দেওয়া হয়নি।

এদিকে সাবেক মন্ত্রিপরিষদ সচিব শফিউল আলমের জন্য মনোনয় ফরম সংগ্রহ করেছেন তাঁর ভাই হলদিয়া পালং ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান শাহ আলম।

শাহ আলম অতি উৎসাহী হয়ে শফিউল আলমের জন্য মনোনয়ন নিয়েছেন বলে দাবি অনেকের। টেকনাফ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাহাবুব মোরশেদ জানান, শফিউল আলম যুক্তরাষ্ট্রে বসবাস করছেন, তিনি সম্মানিত ব্যক্তি, আর তাঁর জন্য শাহ আলম হয়তো অতি উৎসাহী হয়ে মনোনয়ন ফরম নিয়েছেন।

তবে শাহ আলম জানিয়েছেন, তার ভাই সাবেক মন্ত্রিপরিষদ সচিব শফিউল আলমের নির্দেশেই আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন।

৬ জনের গ্রুপের মধ্যে কবি আদিল চৌধুরী অন্য পাঁচজনকে সমর্থন দিয়ে মনোনয়ন ফরম নেননি বলে জানা গেছে।

এদিকে এ আসনটিতে ১৫ জনেরও অধিক প্রার্থী আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন। এ তালিকায় থাকা জেলা যু্বলীগের সাবেক সভাপতি সোহেল আহমদ বাহাদুর ও উখিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও রাজাপালং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরীও মনোনয়ন দৌঁড়ে এগিয়ে আছেন বলে দলের একটি সূত্র বলছে।

তবে মনোনয়ন বোর্ডের চূড়ান্ত সিদ্ধান্তের উপরেই নির্ভর করছে সবকিছু।

আরও খবর

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

জনপ্রিয় সংবাদ