Thursday, June 13, 2024

স্ত্রী-সন্তানদের সাথে শেষ দেখা হলো না দিনমজুর আরমানের : পরিবারে চলছে শোকের মাতম

শাহিদ মোস্তফা শাহিদ :

বাপের বাড়ী বেড়াতে যাওয়া স্ত্রী এবং দুই সন্তানকে নদী পেরিয়ে দেখতে গিয়ে ২৪ ঘন্টা ধরে নিখোঁজ রয়েছে মোহাম্মদ আরমান নামের এক দিনমজুর। নিখোঁজ আরমান ঈদগাঁও ইউনিয়নের মেহের ঘোনা এলাকার ছাবের আহমদ বাবুর্চির ছেলে। আরমান পেশায় একজন রাজমিস্ত্রী। ২ সেপ্টেম্বর (শনিবার) সন্ধ্যা ৭ টার দিকে এ ঘটনাটি ঘটে ঈদগাঁও নদীর ইসলামাবাদ রাজঘাট নামক স্থানে। নিখোঁজের ২৪ ঘন্টা পেরিয়ে গেলো সন্ধান না পাওয়ায় বাকরুদ্ধ হয়ে পড়ছে তার স্বজনেরা।

খবর পেয়ে কক্সবাজার এবং রামু ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ব্যাপক উদ্ধার অভিযান চালিয়েও কোনো কুল কিনারা করতে পারেনি। পরে চট্টগ্রাম থেকে ডুবুরি দল এনে উদ্ধার তৎপরতা শুরু করে। প্রায় এক কিলোমিটার নদীতে সন্ধান চালিয়েও খুঁজে পাওয়া যায়নি নিখোঁজ আরমানকে।।

নিখোঁজ আরমানের স্বজন সাইফুল ইসলাম জানান, খবর পেয়ে স্থানীয়দের পাশাপাশি ফায়ার সার্ভিস, জনপ্রতিনিধিরা সম্ভাব্য বিভিন্ন স্থানে উদ্ধার অভিযান চালায় কিন্তু খোঁজে পাওয়া যায়নি।

এদিকে স্থানীয়রা বলেন, আরমান প্রতিদিনের ন্যায় ঈদগাঁও ভোমরিয়া ঘোনা এলাকায় রাজমিস্ত্রীর কাজ করতে যায়। কাজ শেষ করে পার্শ্ববর্তী গজালিয়া এলাকায় তার শশুর বাড়িতে থাকা স্ত্রী, সন্তানদের দেখতে যেতে আরমানসহ আরো দুইজন নদী পেরিয়ে ঐ পারের উদ্দেশ্যে সাতরিয়ে উঠার চেষ্টা করে। যথারীতি তার অপর দুই সহকর্মী উঠতে পারলেও আরমান উঠতে পারেনি। সে থেকে উদ্ধার অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

ঘটনার খবর পেয়ে সকাল থেকে রামু এবং কক্সবাজার ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ব্যাপক উদ্ধার অভিযান চালিয়েও জীবিত বা মৃত উদ্ধার করতে না পারায় চট্টগ্রাম থেকে একদল ডুবুরি আনা হয়। তারাও প্রায় এক কিলোমিটার নদীর সম্ভাব্য স্থানে তল্লাশি করে। নদীর পানি বেশি এবং স্রোত অতিরিক্ত হওয়ায় ডুবুরি দলের উদ্ধারকর্মীদেরও বেগ পেতে হচ্ছে বলে জানান রামু ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের ইনচার্জ সুমেন বড়ুয়া। তিনি আরো জানান, সন্ধান না মেলা পর্যন্ত তাদের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

এদিকে নাম প্রকাশের অনিচ্ছুক স্থানীয়রা জানান, ঘটনাস্থল থেকে প্রতিনিয়ত বালি উত্তোলনের ফলে নদীর গভীরতা বেড়ে যায় এবং মৃত্যুকুপে পরিনত হয় স্থানটি। পাশাপাশি উভয় পাশে বেড়িবাঁধ এবং রাস্তার ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয় বলে জানান তারা। অব্যাহত বালি উত্তোলন বন্ধের দাবি জানান স্থানীয়রা।

আরও খবর

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

জনপ্রিয় সংবাদ