Monday, February 26, 2024

চকরিয়া-পেকুয়ায় কোণঠাসা হয়ে পড়ছেন জাফর আলম

নিজস্ব প্রতিবেদক :

ক্রমশই কোণঠাসা হয়ে পড়ছেন চকরিয়া-পেকুয়ার স্বতন্ত্র প্রার্থী জাফর আলম। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে পরিবারের লোকজন ছাড়া কেউ কাছে নেই। অন্য দিকে স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতা ও জনপ্রতিনিধিদের বিরোধীতার মুখে পড়ে ভোটের মাঠে দিন দিন একা হয়ে যাচ্ছেন। দীর্ঘ সময় ধরে উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি থাকাকালে দলের দুঃসময়ের ত্যাগী নেতাকর্মীদের বাদ দিয়ে বিএনপি-জামায়াত থেকে আসা মানুষজন আর হাইব্রিড নেতাদের চকরিয়া পৌরসভা, উপজেলা, মাতামুহুরি ও পেকুয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের পদ দখল করে দেয়া, চিংড়ী ঘের ও মানুষের জমি দখল, নিজস্ব সন্ত্রাসী বাহিনী গড়ে তোলে বিরোধীদের দমনের কারনে জাফর আলমের জনপ্রিয়তা এখন শূন্যের কোটায় বলে জানান উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা ও সুরাজপুর মানিকপুর চেয়ারম্যান আজিমুল হক আজিম। তাছাড়া জাফর আলমের পক্ষে থাকা অনেক জনপ্রতিনিধি ও অনুসারীরা নানান অপকর্মে জড়িত থাকায় এখন গা ঢাকা দিয়েছে।

চকরিয়া – পেকুয়ার সাধারণ মানুষ এখন পরিবর্তনের পক্ষে রায় দিতে চায় জানিয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক পেকুয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের এক নেতা জানান, পেকুয়ায় গেলো ৫ বছর ধরে দখল, বেদখল, দলের নাম ভাঙ্গিয়ে এবং এমপির প্রভাব খাটিয়ে সাধারণ মানুষকে হয়রানির কারণে আন জনতা জাফরের কাছ থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে। যদিওবা জাফর আলম বরাবরের মতো দাবী করছেন নির্বাচিত হবেন, জনগন তার পক্ষেই আছেন, ৭ জানুয়ারী তা প্রমান হবে।

এদিকে একটি সূত্র বলছে, নির্বাচনের আগে বা নির্বাচনের দিন চকরিয়া-পেকুয়ার বিভিন্ন স্থানে জাফর আলম নানা ভাবে ভয়ভীতি দেখানো, জোর করে ভোট আদায়ের চেষ্টা করতে পারেন। তবে নির্বাচন সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ভোট হবে অবাধ ও সুষ্ঠ।কেউ নির্বাচন বানচালের চেষ্টা করলে তা কঠোর ভাবে প্রতিহত করা হবে। অন্যদিকে দিনে দিনে হাত ঘড়ি মার্কার পক্ষে সাধারণ ভোটারদের সমর্থন বাড়ছে বলে জানিয়েছে সূত্রটি। সূত্রটি বলছে, বীরমুক্তিযোদ্ধা, সাবেক সেনা কর্মকর্তা, জাতীয় ব্যক্তিত্ব এবং কোনো বিতর্ক না থাকায় সৈয়দ মোহাম্মদ ইবরাহিম নিরাপদ প্রার্থী। তিনি এমপি হলে দখলবাজি আর সন্ত্রাসী দলবল থেকে মুক্ত হবে চকরিয়া পেকুয়া।

আরও খবর

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

জনপ্রিয় সংবাদ

You cannot copy content of this page