Monday, February 26, 2024

চকরিয়া-পেকুয়া আসনে আ:লীগের প্রার্থী নেই : সুবিধায় জাফর আলম

নিজস্ব প্রতিবেদক :

সংসদ নির্বাচনে জাতীয় পার্টি কে ২৬ টি এবং অন্যান্য শরীক দলকে ৬ টি আসন ছেড়ে দিয়েছে আওয়ামীলীগ। ৩০০ আসনের মধ্যে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থীরা লড়েবেন ২৬৩টি আসনে।কক্সবাজার ১ আসন তথা চকরিয়া-পেকুয়াসহ ৫ টি আসন উন্মুক্ত রেখেছে আওয়ামীলীগ।
জানা গেছে, দ্বৈত্ব নাগরিকত্ব, ঋণ খেলাপিসহ বিভিন্ন কারণে নির্বাচন কমিশনে প্রার্থিতা বাতিল হওয়ায় এই পাঁচটি আসন উন্মুক্ত রেখেছে দলটি।

আসনগুলো হলো কক্সবাজার-১, ময়মনসিংহ-৯, কিশোরগঞ্জ-৩, বরিশাল-৪ এবং ফরিদপুর-৩। এসব আসনে যথাক্রমে মনোনয়ন পেয়েছিলেন সালাহউদ্দিন আহমদ, আব্দুস সালাম, এনামুল হক, শাম্মী আহমেদ ও শামীম হক।

এ বিষয়ে আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া বলেন, জাতীয় পার্টি ও শরিকদের জন্য ৩২টি আসনে ছাড় দিয়েছে আওয়ামী লীগ। আওয়ামী লীগের মিত্রদের সঙ্গে জোটভুক্ত হয়ে নির্বাচন করছি আমরা। যাচাই-বাছাই শেষে আমাদের নিজেদের পাঁচটি আসনের মনোনয়ন বাতিল হয়েছে। সেসব আসন আমাদের দিক থেকে উন্মুক্ত থাকবে।

এদিকে চকরিয়া- পেকুয়ায় আওয়ামীলীগের মনোনয়ন নিয়ে চলছিলো নানান জল্পনা কল্পনা। তবে উন্মুক্ত রাখা মানে এসব আসনে আওয়ামীলীগের কোনো প্রার্থী থাকছে না। ১৮ ডিসেম্বর প্রতিক বরাদ্দের শেষ দিন। এ আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী জাফর আলমের শক্ত কোনো প্রতিন্দ্বন্দ্বি নেই, যদিওবা কল্যান পার্টির চেয়ারম্যান সৈয়দ ইবরাহিম এ আসনে প্রার্থী হয়েছেন। তবে তিনি এখানে অপরিচিত এবং বাইরের মানুষ তাই ভোটের রাজনীতিতে তিনি পেরে উঠবেন না বলছেন এ আসনের ভোটাররা। উন্মুক্ত করে দেয়ায় জাফর আলমের জন্যে বিষয়টি সহজ হয়ে গেছে বলে মন্তব্য করেছেন অনেকেরই।

আরও খবর

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

জনপ্রিয় সংবাদ

You cannot copy content of this page