Sunday, February 25, 2024

জাপার সঙ্গে আসন ভাগাভাগি নয়, রাজনৈতিক আলোচনা: ওবায়দুল কাদের

টিটিএন ডেস্ক:

সংসদের বিরোধী দল জাতীয় পার্টির (জাপা) সঙ্গে দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে আসন ভাগাভাগি নিয়ে কোনও আলোচনা হয়নি বলে দাবি করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, রাজনৈতিক আলোচনাই ছিল মুখ্য। আসন ভাগাভাগির বিষয়টা আমি জানি না। এমন কোনও আলোচনাও হয়নি।

বৃহস্পতিবার (৭ ডিসেম্বর) দুপুরে ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক ব্রিফিংয়ে এ কথা বলেন তিনি।

জাতীয় পার্টির সঙ্গে আলোচনা করার কথা জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, আলোচনা হয়েছে নির্বাচনকে অবাধ, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ করতে নির্বাচনমুখী দলগুলোর সমন্বয়ে ঐক্যবদ্ধভাবে নাশকতা-গুপ্ত হামলার মতো নির্বাচনবিরোধী অপকর্ম প্রতিহত করা নিয়ে। এটাই আমাদের আলাপ-আলোচনার মূল বিষয় ছিল।

জাতীয় পার্টির দল হিসেবে অনেক কথাই বলতে পারে মন্তব্য করে তিনি বলেন, রাজনৈতিক দল হিসেবে নিজেদের শক্তিমত্তা প্রদর্শন করতে তারা তো চাইবেই। বাস্তবে কী হবে, সেটি পরে দেখা যাবে। চাইতে তো কোনও দোষ নেই, আশা বড় থাকাই ভালো।

জাতীয় পার্টির সঙ্গে আলোচনা নিয়ে লুকোচুরির কারণ জানতে চাইলে সাধারণ সম্পাদক বলেন, লুকোচুরির বিষয় নয়। এটা নিয়ে এত ঢাকঢোল পেটানোর কী আছে? নির্বাচনমুখী রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে সমন্বয় থাকা দরকার। কারণ, নির্বাচনবিরোধী শক্তিরা যে অপরাজনীতি করছে, সেটি মোকাবিলার জন্য আমাদের মধ্যে একটা সমন্বয় করা দরকার। কারণ, নির্বাচনকে শান্তিপূর্ণ করা, নির্বাচনকে গ্রহণযোগ্য করা, নির্বাচনকে অবাধ ও সুষ্ঠু করার অঙ্গীকার আমাদের রয়েছে। এ জন্য আমরা আলাপ-আলোচনা করছি। এখানে লুকোচুরির কোনও ব্যাপার না।

তিনি আরও বলেন, নির্বাচন যতই ঘনিয়ে আসছে, বিএনপি ততই নির্বাচন বানচালে মরিয়া হয়ে উঠছে। তাদের নাশকতার মাত্রা আরও বিস্তৃত হতে পারে। মুরগির বাচ্চাও তাদের টার্গেট। নাশকতা, গুপ্ত হামলার ভয়াবহ যে চিত্র, তা রেকর্ড স্থাপন করছে। গতকাল পর্যন্ত ৬০০ গাড়ি ভাঙচুর করেছে, ১০টি রেলে আগুন দিয়েছে।

পোশাক খাতে মার্কিন ক্রেতা প্রতিষ্ঠানের নতুন শর্তের বিষয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, যুক্তরাষ্ট্র চাইলেও একতরফা কিছু করতে পারবে না। যুক্তরাষ্ট্রের ইউরোপ ও এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় এলাকার বন্ধু দেশগুলো বাংলাদেশের বিষয়ে চরম কোনও সিদ্ধান্ত নিতে এখন আর পক্ষপাতী নয়।

তিনি বলেন, আমরা বিদেশে বন্ধুহীন নই। তারা জানে বাংলাদেশে সাংবিধানিক ধারাবাহিকতা রক্ষায় শেখ হাসিনা কীভাবে নির্বাচন করছেন। দেশে যাতে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি না হয়, সে জন্য নির্বাচন করছেন। জনগণের ভোটের মাধ্যমেই সরকারি ও বিরোধী দল আসবে।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ, আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, সাংগঠনিক সম্পাদক বি এম মোজাম্মেল হক ও উপদফতর সম্পাদক সায়েম খান প্রমুখ।

আরও খবর

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

জনপ্রিয় সংবাদ

You cannot copy content of this page