Monday, March 4, 2024
spot_img

চকরিয়ায় হাসপাতালের ফটক বন্ধ করে আ.লীগের জনসভা: সহকারি রির্টানিং কর্মকর্তার কাছে অভিযোগ দায়ের

সাইফুল ইসলাম সাইফ:

কক্সবাজারের চকরিয়া সিটি হাসপাতালের প্রধান ফটক প্রায় ৩ ঘন্টা বন্ধ করে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী সালাহ উদ্দীন আহমদের নির্বাচনী সভা করার অ‌ভি‌যোগ পাওয়া গেছে। এসময় হাসপাতালে থাকা রোগী, স্বজন ও কর্মরত চিকিৎসকসহ সং‌শ্লিষ্টরা দু‌র্ভো‌গে প‌ড়েন ব‌লে জানা গে‌ছে।

গত বুধবার (২৯ নভেম্বর) পৌরশহরের শহীদ আবদুল হামিদ বাস টার্মিনালস্থ সিটি হাসপাতালের একমাত্র প্রবেশ ও বের হওয়ার হওয়ার প্রধান গেট‌টি বন্ধ করে এ জনসভা করার ঘটনা ঘ‌টে। বিষয়টি নিয়ে নির্বাচন আচরণবিধি লঙ্ঘন ও জনদূর্ভোগ সৃ‌ষ্টি হয়েছে উল্লেখ করে সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তার বরাবর অভিযোগ জমা দিয়েছেন হাসপাতালটির পরিচালক খায়রুল বাশার সোহেল। ওই অ‌ভি‌যোগ করা সেই চিঠি‌র এক‌টি ক‌পি‌ আজ শ‌নিবার টিটিএন পে‌য়ে‌ছে।

রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে করা ওই অ‌ভি‌যো‌গপ‌ত্রে বলা হ‌য়ে‌ছে, হাসপাতালটিতে প্রবেশ ও বের হওয়ার প্রধান পথ হচ্ছে নিচতলা থেকে দোতলা পর্যন্ত নির্মিত সিঁড়ি। সেই সিঁড়িকে মঞ্চ বানিয়ে আগামী ৭ জানুয়ারী অনুষ্ঠিতব্য দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণকারী প্রার্থী সালাহ উদ্দিন আহমদ এর নির্বাচনী সভা করা হয়। এই কারণে ২৯ ন‌ভেম্বর দুপুর থেকে সন্ধ্যা পাঁচটা পর্যন্ত চকরিয়া সিটি হাসপাতালের প্রধান ফটক বন্ধ করে
দেওয়া হয়। এতে সারাদিন কোন রোগী চিকিৎসা নিতে হাসপাতালে আসতে পারেননি। অন্যদিকে হাসপাতালে আগে থেকে ভর্তি থাকা বিপন্ন অনেক রোগী ও স্বজনেরা দীর্ঘ ৫-৬ ঘন্টা ধরে জিম্মি অবস্থায় ছিল। এই সময় অসংখ্য মাইকের আওয়াজে শব্দ দূষণও ছড়িয়ে পড়ে। এতে নির্বাচনী আচরণবিধির সুস্পষ্ট লঙ্ঘন ছাড়াও হাসপাতালে ভর্তি থাকা রোগী, স্বজন এবং হাসপাতালের ডাক্তার, কর্মচারীরা অমানবিক আচরণের শিকার হন।

অভি‌যোগপ‌ত্রে আচরণবিধি লঙ্ঘনের বিষয়টি খতিয়ে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়ার অনুরোধ এবং আগামীতে এই ধরণের নির্বাচনী সভা-সমাবেশ বা কোন প্রার্থীর প্রচারণার মঞ্চ হিসেবে কোন চিকিৎসা কেন্দ্রকে যাতে ব্যবহার করতে না পারে সেজন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জোর দাবিও জানা‌নো হ‌য়ে‌ছে।

এ বিষষে জানতে চাইলে সালাহ উদ্দীন আহমেদ জানান, জনসভার আয়োজন করেছে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা ও সাধারণ জনগণ। তারা আয়োজন করে আমাকে বলেছে, আমি ওখানে গিয়েছি। আয়োজক আমি ছিলাম না।

এদি‌কে, সহাকারি রিটার্নিং কর্মকর্তা ও চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জেপি দেওয়ান জানান, হাসপাতালের প্রধান ফটক বন্ধ ও আচরণবিধি লঙ্ঘন করেছে একজন প্রার্থী এই ধরনের একটি অভিযোগ হাতে পেয়েছি। নির্বাচন উপলক্ষে চকরিয়ায় দুইজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে সত্য, মিথ্যা যাচাই করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আরও খবর

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

জনপ্রিয় সংবাদ

You cannot copy content of this page