Thursday, February 29, 2024
spot_img

সেন্টমা‌র্টি‌ন: জীববৈচিত্র্য রক্ষায় কুকুর বন্ধ্যাত্বকরণ কর্মসূচি

‌নিজস্ব প্রতি‌বেদক:

পর্যটন কেন্দ্র হলেও পরিবেশ ও প্রতিবেশগত ভাবে সংকটাপন্ন দ্বীপ সেন্টমা‌র্টি‌ন।

দ্বী‌পের জীব বৈচিত্র্য রক্ষায় এবার কুকু্রের গনবন্ধ্যাকরণ কর্মসূচি শুরু করেছে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশন ও ‌কক্সবাজার জেলা প্রশাসন।

শুক্রবার (২৪ ন‌ভেম্বর) থে‌কে সেন্টমার্টিন সৈকতের জেটি ঘাট পয়েন্টে থেকে শুরু হয় এ কার্যক্রম। যা চল‌বে ১০ দিনব্যাপী।

দ্বীপের স্থানীয়রা জানান, কুকু‌রের সংখ‌্যা বে‌ড়ে যাওয়ায় দীর্ধ‌দিন ধ‌রে নানা অপ্রী‌তিকর অবস্থার সম্মুখীন হ‌চ্ছি‌লেন তারা।

প্রথমধা‌পে ২০০ কুকুর‌কে বন্ধ‌্যাকরন করার প‌রিকল্পনার কথা জানান বিদ্যানন্দের স্বেচ্ছাসেবকরা। সফল হলে পরবর্তীতে বাকী কুকুরগুলোরও বন্ধ্যাকরণ করা হবে।

ঢাকা থেকে ৩ জন পশু চিকিৎসক, ৫ জন ভেট সহকারি ও ২৫ জন প্রশিক্ষিত স্বেচ্ছাসেবকের টিম এই কর্মসূ‌চি‌ বাস্তবায়নে সহযোগিতা করছেন।

বিদ্যানন্দের স্বেচ্ছাসেবক মোবারক হোসেন জানান, সেন্টমার্টিন দ্বীপে প্রায় হাজার খানেক কুকুর বিচরণ করছে। ছোট্ট দ্বীপটির লোকসংখ্যা অনুপাতে যা অনেক বেশি। মূল ভূখন্ড থেকে বিচ্ছিন্ন বলে কুকুরগুলো অন্য এলাকায় যেতে পারেনা। এছাড়াও কুকুরের কারণে সৈকতে মা কাছিম ডিম পাড়তে আসেনা। কুকুরের আক্রমণের ভয়ে অনেক সময় স্থানীয় বাসিন্দা ও পর্যটকরা কুকুরের প্রতি নির্দয় আচরণ করে।

দেশের অন্য এলাকার কুকুরের সঙ্গে সেন্টমার্টিনে বাসরত কুকুরের মধ্যে পার্থক্য আছে জানিয়ে এক স্বেচ্ছাসেবী চিকিৎসক বলেন, এখানকার কুকুরগুলোর স্বাভাবিক প্রজনন হার অনেক বেশি এবং কুকুরছানার মৃত্যুহারও কম। আর এজন‌্যই তা‌দের এই বন্ধ‌্যাকরণ কর্মসূ‌চি।

বন্ধ্যাকরনের পূর্বে যেসব বিষয়ের উপর পর্যবেক্ষণ করা হয়, তা হলো- অধিক কুকুরের সংখ‌্যা প্রবাল দ্বীপের সামুদ্রিক জীববৈচিত্র্য- স্বাভাবিক বাস্তুসংস্থান ও প্রাকৃতিক ভারসাম্য রক্ষার পক্ষে আরো বড় আকা‌রের হুমকি তৈ‌রি কর‌বে। এজন‌্য কুকুর নিধন কিংবা অপসারণ কোনো স্থায়ী সমাধান নয় বরং বন্ধ্যাকরণ-ই বিজ্ঞানসম্মত সমাধান।

পাশাপাশি কুকুরগুলোর দায়িত্বশীল অভিভাবকত্ব, সুষ্ঠু খাদ্য ও বর্জ্য ব্যবস্থাপনাও প্রয়োজন বলে মনে করেন স্বেচ্ছাসেবকরা।

আরও খবর

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

জনপ্রিয় সংবাদ

You cannot copy content of this page