Friday, April 19, 2024

চকরিয়া-পেকুয়ার মনোনয়ন: আওয়ামীলীগ নাকি শরিক দল?

নিজস্ব প্রতিবেদক :

ঢাকা থেকে আসছে নানান উড়ো খবর, এলাকায় চলছে নানান গুঞ্জন। কেউ বলছে আসছে পরিবর্তন, কেউ বলছে আগের জায়গাতেই থাকছে। এমন নানান আলাপে মুখর চকরিয়া- পেকুয়া আসনের মনোনয়নের বিষয়টি।

এই আসনে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন ফরম জমা দিয়েছেন বর্তমান সংসদ সদস্য জাফর আলমসহ ১৪ জন। অনেকেই বলছেন আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক প্রয়োজনে চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও বর্তমান সংসদ সদস্য জাফর আলমকেই এ আসনে দরকার, তবে এর দ্বিমত পোষনকারিরা বলছেন সংসদ নির্বাচনে বিতর্কের উর্ধ্বে থাকা কোনো ব্যক্তিকেই প্রাধান্য দিতে পারে দল।

এ আসনে ১৪ দল এবার আঁটসাঁট বেঁধে নেমেছে, যেনো তাদের হাতেই থাকে আসনটি। ১৪ দলের শরীক দল আনোয়ার হোসেন মঞ্জুর নেতৃত্বাধীন জাতীয় পার্টি (জে পি) এ আসনে দর কষাকষি করছে তাদের আসনটি ছেড়ে দেয়ার জন্যে। যদি এমন হয় তবে জাতীয় পার্টি (জেপি) নেতা সাবেক কক্সবাজার জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সালাউদ্দিন মাহমুদ চৌধুরী হতে পারেন এ আসনে ১৪ দলের প্রার্থী।

যদিওবা আওয়ামীলীগ এ আসনটি ছাড়বে কি না তা এখনো নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না। যদি শরীক দলকে ছাড় না দেয় সেক্ষেত্রে এ আসনে জাফর আলমকেই আবারো মনোনয়ন দিতে পারে আওয়ামীলীগ- এমনই বলছেন অনেকেই।

এ আসনে মনোনয়ন প্রত্যাশী জেলা আওয়ামীলীগ নেতা রেজাউল করিম টিটিএন কে জানিয়েছেন, দীর্ঘদিনের সংগ্রাম ত্যাগ তিতিক্ষার পর দলের মনোনয়ন চেয়েছেন। তবে দলের নেত্রীর প্রতি শতভাগ আনুগত্য পোষন করে তিনি বলেন, যাকে মনোনয়ন দেবে তার পক্ষেই কাজ করবেন। তিনি বলেন, ১৪ দলের শরীক কোনো দলকে আসনটি ছেড়ে দেয়ার দলীয় সিদ্ধান্ত হলেও তাও মেনে নেবো।

চকরিয়া- পেকুয়া আসনে আওয়ামীলীগের অপর মনোনয়ন প্রত্যাশী জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সালাউদ্দিন আহমেদ সি আই পি টিটিএনকে জানিয়েছেন, তিনি মনোনয়ন পাবেন বলে আশাবাদী, তবে শরীক কোনো দলকে আসন ছাড়ার সিদ্ধান্ত হলে তা তিনি মেনে নেবেন। তিনি বলেন, আমাকে যদি মনোনয়ন দেয়াও না হয় তবে কোনো খারাপ মানুষ কে যেনো মনোনয়ন দেয়া না হয়।

কক্সবাজার ০১ আসন থেকে জাতীয় পার্টি – জে পির কেন্দ্রীয় প্রেসিডিয়াম সদস্য সালাউদ্দিন মাহমুদ চৌধুরী নিজ দলীয় মনোনয়ন ফরম জমা দিয়েছেন বলে টিটিএনকে জানিয়েছেন। তিনি জানান, জাতীয় পার্টি -জেপি কে কয়টি আসন দেবে আওয়ামীলীগ তার উপর নির্ভর করবে তাঁর মনোনয়ন। দুইয়ের অধিক আসন যদি তাদের দেয়া হয় তবে চকরিয়া-পেকুয়া আসনটি থাকতে পারে।

এদিকে চকরিয়া- পেকুয়ার সংসদ সদস্য ও এবারের মনোনয়ন প্রত্যাশী জাফর আলম জানান, তিনি দলের সাথে ছিলেন, দলের জন্যে সর্বোচ্চটা তিনি করে যাচ্ছেন। তাই দল তাকে নিরাশ করবে না বলে তার বিশ্বাস। তিনি বলেন, নিশ্চয় দলের হাই কমান্ড চকরিয়া- পেকুয়ার মানুষ কি চায়, কাকে চায় তা জেনেই আমাকে বিবেচনা করবেন।

শুক্রবার আওয়ামীলীগের মনোনয়ন বোর্ডের সভায় চট্টগ্রাম বিভাগের মনোনয়ন চুড়ান্ত করা হলে সেখানে এ আসনটির নৌকার মাঝি কে হচ্ছেন তাও নির্ধারিত হবে।

আরও খবর

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

জনপ্রিয় সংবাদ

You cannot copy content of this page