Monday, March 4, 2024
spot_img

কক্সবাজার ৩ আসনে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন কে পাচ্ছেন: অন্যদলের কেউ প্রার্থী হবেন কি?

নিজস্ব প্রতিবেদক:

সদর-রামু-ঈদগাঁও উপজেলা নিয়ে গঠিত কক্সবাজার ০৩ সংসদীয় আসন। এই আসনে কে পাচ্ছেন আওয়ামীলীগের মনোনয়ন? এ নিয়ে চলছে আলোচনার ঝড়।

আবার নির্বাচনে অংশ নেবে এমন দল থেকে অন্য কোনো শক্ত প্রার্থী নির্বাচন করে কি না এ নিয়েও রয়েছে নানান গুঞ্জন।

এই আসনে আওয়ামীলীগের টানা ২ বারের সংসদ সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমল। তিনি ২০০৮ সাল থেকে ৩ বার মনোনয়ন পেয়েছেন আওয়ামীলীগের। এবারও তিনি মনোনয়ন প্রত্যাশী। করোনা, বন্যাসহ দুর্যোগকালীন সময়ে মানুষের পাশে ছিলেন এবং তার সময়ে ব্যাপক উন্নয়ন কর্মকান্ড হয়েছে বলে জানিয়ে তিনি বুধবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আপলোড করা ভিডিও বক্তব্যে দলের হাইকমান্ডের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন এবং তার আসনের ভোটারদের দোয়া চেয়েছেন।

গেলো দুইবার সংসদ নির্বাচনে প্রথমে তাকে মনোনয়ন দেয়া না হলেও দুইবারই শেষ পর্যন্ত তিনিই মনোনয়ন পেয়ে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। নির্বাচনী এলাকার প্রতিটি জনপদের মানুষের সাথে কমলের যোগাযোগ ভালো এবং সাধারণ ভোটারদের কাছে তিনি গ্রহনযোগ্য বলে দাবী করেছেন রামু প্রেসক্লাবের সভাপতি নীতিশ বড়ুয়া। তিনি জানান, ভোট করে জিততে হলে এমপি কমলকেই মনোনয়ন দেয়া উচিৎ।

এই আসনে নৌকা প্রতীক পাওয়ার জন্য মনোনয়ন ফরম জমা দিয়েছেন ১৩ জন। যেখানে আছেন এমপি কমলের বড় ভাই সোহেল সরওয়ার কাজল ও ছোটো বোন নাজনীন সরওয়ার কাবেরী।

তাছাড়া জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমানও মনোনয়ন ফরম জমা দিয়েছেন। তার অনুসারীরা বলছেন, দলের অনুগত ও পরিক্ষীত নেতা মুজিব। মেয়র থাকার পরও পৌরসভা নির্বাচনে তাকে মনোনয়ন দেয়া না হলেও তিনি দলের সিদ্ধান্ত মেনে নৌকার মেয়র প্রার্থী মাহাবুবুর রহমানের জন্যে কাজ করেছেন। দলের সিদ্ধান্তকে সম্মান জানিয়েছেন এবং যেহেতু সদর আসন, তাই দলের সাধারণ সম্পাদক কে মনোনয়ন দেয়া হলে দল আরো সুসংগঠিত হবে।

অন্যদিকে কক্সবাজার পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি নজিবুল ইসলামও এই আসনে মনোনয়ন প্রত্যাশী। তিনি নিরাপদ রাজনীতিবিদ,জমি দখল, অনৈতিক কর্মকাণ্ড তাকে স্পর্শ করেনি তাই ক্লিন ইমেজের অধিকারী হিসেবে তাকে মনোনয়ন দেয়া হলে দল উপকৃত হবে বলে জানান কক্সবাজার পৌর এলাকার বিভিন্ন ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের নেতারা।

এছাড়াও সদর আসনে আওয়ামীলীগের দলীয় মনোনয়ন জমা দিয়ে নানান হিসেব নিকেশের জন্ম দিয়েছেন কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের সাবেক চেয়ারম্যান লে: কর্ণেল ফোরকান আহমেদ। কেউ বলছেন হাই কমান্ডের ইশারায় তিনি মনোনয়ন জমা দিয়েছেন, আবার কেউ বলছেন, কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান হিসেবে কক্সবাজারের প্রধান সড়কসহ বেশ কিছু প্রকল্প বাস্তবায়ন করে সফলতার স্বাক্ষর রেখেছেন তাই তিনি যোগ্য।

অন্যদিকে তৃনমূল বিএনপি থেকে বিএনপির সাবেক সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার সহিদুজ্জামান নির্বাচন করবেন বলে গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে। যদিওবা বিষয়টি এখনো সহিদুজ্জামান বা উনার পক্ষ থেকে কেউ নিশ্চিত করেনি। বরং এমন সংবাদকে গুজব বলে মন্তব্য করেছেন সহিদুজ্জামানের ঘনিষ্ঠজনেরা। যদি অনেকের এ অনুমান সত্য হয় তবে ভোটের হিসেব নিকেশ পাল্টে যাবে। ভোট যুদ্ধে অবতীর্ণ হয়েই জিততে হবে প্রার্থীদের।

এ আসন থেকে জাতীয় পার্টির মনোনয়ন প্রত্যাশী রয়েছেন মফিজুর রহমান। তিনি জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জি এম কাদেরের উপদেষ্টা।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে ঢাকায় অবস্থান করা কক্সবাজারেের একজন রাজনীতিবিদ বলছেন, সাইমুম সরওয়ার কমল মনোনয়ন পাওয়ার সম্ভাবনা বেশী। যদি প্রাথী বদল হয় সেক্ষেত্রে ফোরকান আহমেদ পেতে পারেন। অর্থাৎ সাইমুম সরওয়ার কমল বা ফোরকান আহমদ এ দুইজনের একজন পেতে পারে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন। অবশ্য এটা কি তার ব্যক্তিগত মতামত কিংবা দলের কোনো সূত্র থেকে পাওয়া তথ্য কি না তা নিশ্চিত করেননি।

অন্যদিকে মনোনয়ন দৌড়ে পিছিয়ে নেই জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান, পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি নজিবুল ইসলাম ও কানিজ ফাতেমা আহমেদ।

সব জল্পনা কল্পনা ছাপিয়ে সদর-রামু-ঈদগাঁও আসনে নৌকার মাঝি কে হচ্ছেন তা নিশ্চিত হওয়া যাবে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন বোর্ডের সিদ্ধান্ত পেলে।

আরও খবর

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

জনপ্রিয় সংবাদ

You cannot copy content of this page