Monday, February 26, 2024

টেকনাফে বায়না করা জমি রীফ প্রপার্টি সলিউশন্স কে প্রতারনামূলক বিক্রি: আদালতে মামলা

টেকনাফ প্রতিনিধি :

কক্সবাজারের টেকনাফ বাহারছড়া ইউনিয়নের বড়ডেইল মৌজায় ২৫ লক্ষ টাকা মূল্যে ০.৫০ একর জমি বিক্রির জন্য একটি স্টাম্প বায়না নামা করে উভয়পক্ষ। পরে বায়না নামা চুক্তিমতে মারিশবনিয়া এলাকার মৃত সাবের আহমদ (প্রকাশ) ছেবর মিয়ার ছেলে মোহাম্মদ আলমের কাছ থেকে নগদ ১২ লক্ষ টাকা নেন একই এলাকার মৃত নাজির হোছাইন এর ছেলে আব্দুর রহমান।

তারা পরস্পর আপন চাচা ভাইপো হওয়ায় সরল বিশ্বাসে রেজিস্ট্রার বায়না না করে  স্টাম্পের সাক্ষীগণের সামনে বায়না করে। পরে উক্ত বায়না নামা গোপন রেখে ওই জমি রীফ প্রপার্টি সলিউশন্স লিমিটেড নামে একটি প্রতিষ্ঠানকে বিক্রি করে দেয় ভুক্তভোগীর মোহাম্মদ আলমের চাচা আব্দুর রহমান।

বায়না নামা করা ব্যক্তির অগোচরে উক্ত জমি ক্রয় করায় রীফ প্রপার্টি সলিউশন্স লিমিটেড, মৃত নজির হোসাইননের ছেলে আব্দুর রহমান’সহ রীফ প্রপার্টি সলিউশন্স এর বিরুদ্ধে কক্সবাজার যুগ্ন জেলা জজ (২য়) আদালতে মোহাম্মদ আলম বাদী হয়ে ‘হকসফি’ মামলা দায়ের করে। যার মামলা নং ১৯৫/২০২৩।

মামলার বাদী মোহাম্মদ আলম জানান, উক্ত ০.৫০ একর জমি’টি ২৫ লক্ষ টাকা মূল্যে আব্দুর রহমানের সাথে একটি বায়না নামা চুক্তি হয়। যার মধ্যে ১২ লক্ষ টাকা নদগ প্রদানও করি। অবশিষ্ট ১৩ লক্ষ টাকা জমি বুঝিয়ে দিলে দেওয়ার কথাও উল্লেখ্য আছে বায়না নামায়। কিন্তু সুচতুর আব্দুর রহমান লোভের বশীভূত হয়ে আমি এবং আমদের কাউকে না জানিয়ে রীফ প্রপার্টি সলিউশন্স লিমিটেড নামের একটি প্রতিষ্ঠানকে বিক্রি করে দেয়। পরে বিষয়টি অবগত হওয়ার পর ওই প্রতিষ্ঠান ও আব্দুর রহমান এর বিরুদ্ধে কক্সবাজার আদালতে একটি মামলা দায়ের করি।

আমি উক্ত জমি ফিরে পেতে সুষ্ঠু বিচার ও সমাধানের পাশাপাশি বিষয়টি আমলে এনে রীফ প্রপার্টি সলিউশন্স লিমিটেডের সহ প্রতারক আব্দুর রহমান বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য মামলাটি করেছি ।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে মামলার ২নং বিবাদী ও জমির মালিক আব্দুর রহমান বায়না নামা ও ১২ লক্ষ টাকা নেওয়ার বিষয়টি স্বীকার করেন। বায়না নামা ও ১২ লক্ষ টাকা নিয়ে কেন অপরজনকে জমি বিক্রি করছেন এমন প্রশ্ন করা হলে তিনি মুঠোফোন কেটে দেন।

আরও খবর

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

জনপ্রিয় সংবাদ

You cannot copy content of this page