Monday, February 26, 2024

মিধিলি মোকাবেলায় জেলা প্রশাসনের জরুরি প্রস্তুতি সভা

রাহুল মহাজন:

বঙ্গোপসাগরে তৈরি হওয়া ঘূর্ণিঝড় মিধিলির প্রভাবে কক্সবাজার বৃষ্টিপাত অব্যাহত রয়েছে। শুক্রবার (১৭ নভেম্বর) সকাল থেকে কোথাও গুঁড়ি গুঁড়ি আবার কোথাও মাঝারি থেকে ভারী বৃষ্টিপাত হচ্ছে। আবহাওয়া অধিদপ্তর কক্সবাজার চট্টগ্রাম সমুদ্র বন্দরকে ৬ নম্বর বিপদ সংকেত দেখাতে বলেছে।

এদিকে, ঘূর্ণিঝড়ের সম্ভাব্য ক্ষয়ক্ষতি এড়াতে আগাম প্রস্তুতি নিচ্ছে কক্সবাজার জেলা প্রশাসন। ইতিমধ্যে জেলা প্রশাসক মুহম্মদ শাহিন ইমরান জেলার সরকারি-বেসরকারি কর্মকর্তাদের নিয়ে জেলা দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটি সভা করেছেন।

জেলা প্রশাসক মুহম্মদ শাহীন ইমরান জানিয়েছেন, জনগনকে সচেতন করতে এবং নিরাপদ আশ্রয় কেন্দ্রে চলে যেতে উপকূলীয় এলাকায় মাইকিং চলছে। জেলার বিভিন্ন উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তারাও দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির সভা করেছেন। ঘূর্ণিঝড়ের আগাম প্রস্তুতি নিতে সংশ্লিষ্ট দপ্তরকে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। জেলার আশ্রয়কেন্দ্রগুলোকে প্রস্তুত রাখতে বলা হয়েছে। একই সঙ্গে বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান চিহ্নিত করে আশ্রয়কেন্দ্র হিসেবে ব্যবহারের জন্য প্রস্তুত রাখতে বিভিন্ন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাদেরও নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। দুর্যোগকালীন ও দুর্যোগ পরবর্তী সময়ে প্রতিটি আশ্রয়কেন্দ্রে শুকনা খাবার, নিরাপদ খাবার পানি ও স্যানিটেশন ব্যবস্থা চালু রাখার প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। আবহাওয়া অধিদপ্তরের সতর্কবার্তা মেনে সকলকে নিরাপদ স্থানে আশ্রয় নেওয়ার আহ্বানও জানান তিনি।

এদিকে, ঘূর্ণিঝড় সংক্রান্ত আবহাওয়ার ৯ নম্বর বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, উত্তরপশ্চিম বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত ঘূর্ণিঝড় মিধিলি উত্তর-উত্তরপূর্ব দিকে অগ্রসর হয়ে একই এলাকায় (২০.৩০ উত্তর অক্ষাংশ এবং ৮৮.৬০ পূর্ব দ্রাঘিমাংশ) অবস্থান করছে। এটি আজ (১৭ নভেম্বর) সকাল ৯টায় চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে ৪১৫ কি.মি. পশ্চিম-দক্ষিণপশ্চিমে, কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর থেকে ৩৯৫ কি.মি. পশ্চিম-দক্ষিণপশ্চিমে, মোংলা সমুদ্র বন্দর থেকে ২৬৫ কি.মি. দক্ষিণ-পশ্চিমে এবং পায়রা সমুদ্রবন্দর থেকে ২৭০ কি.মি. দক্ষিণ-পশ্চিমে অবস্থান করছিল। এটি আরও উত্তর-উত্তরপূর্ব দিকে অগ্রসর হয়ে আজ সন্ধ্যা নাগাদ খেপুপাড়ার কাছ দিয়ে মোংলা-পায়রা উপকূল অতিক্রম করতে পারে।

আরও খবর

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

জনপ্রিয় সংবাদ

You cannot copy content of this page