Wednesday, April 10, 2024

নিখোঁজের ৪ দিন পর নর্দমায় শিশুর মরদেহ

সিয়াম সোহেল :

শহরের বাসটার্মিনাল নাপ্পাঞ্জা পাড়া এলাকা থেকে নিখোঁজের ৪ দিন পর আশরাফুল ইসলাম রোহান (৬) নামে এক শিশুর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

বুধবার বিকেলে পৌরসভার ৬ নং ওয়ার্ডের নাপ্পাঞ্জা পাড়া নারিকেল বাগানের পাশে নালা থেকে শিশুটির মরদেহ উদ্ধার করা হয়। আশরাফুল ইসলাম রোহান ঝিলংজা ২ নং ওয়ার্ড দক্ষিন হাজীপাড়া রহমত উল্লহর ছেলে।

স্থানীয়রা জানায়, শনিবার বিকেলে নিহত রোহান বাড়ি থেকে বের হয়ে ফিরে আসেনি। পরে বিভিন্ন জায়গায় খোঁজার পর না পেয়ে থানায় জিডি করেন নিহতের পরিবার। এরপর স্যোসাল মিড়িয়ায় ছড়িয়ে পড়লে সবাই রোহানের খোঁজ নিতে তৎপরতা চালায়। নিখোঁজের ৪ দিন পর বাসটার্মিনাল সংলগ্ন নাপ্পাঞ্জা পাড়ায় এক শিশুর মরদেহ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশকে খবর দেন। পরে পুলিশ এসে সিআইডির ক্রাইম ইউনিট নানা প্রক্রিয়া শেষে সদর হাসপাতালের মর্গে লাশ নিয়ে যায়।

এদিকে নিহত রোহানের মামা জাহিদ হোসেন বলেন, খবর পেয়ে আমরা ছুটে গিয়ে দেখি মরদেহটি আমার ভাগিনার। মুখ উল্টিয়ে নালায় পড়ে আছে এবং তার এক হাত বাঁকা হয়ে আছে। পরে পুলিশ আর স্থানীয়দের সহযোগিতায় মর্গে নিয়ে আসি।

নিহত রোহানের এলাকার সমাজের সভাপতি মঈন উদ্দিন বলেন, ছেলেটি প্রতিদিন আমার সামনে খেলা করে। নিখোঁজের দিন বিকেলে পাশের দোকান থেকে সিলেটের নির্মান শ্রমিক মোঃ রাহিন তাকে নাস্তা কিনে দেন। এ খবর জানার পর তাকে সন্দেহজনক ভাবে আমরা এলাকাবাসীর হেফাজতে রাখি। এছাড়াও তিনি আরো বলেন, নিহতের মরদেহ পোস্টমর্টেমের পর এলাকাবাসী রাস্তার মোড়ে মোড়ে সিসিটিভি ফুটেজ চেক করলে, নিখোঁজের দিন তার পিছনে নিহত রোহানকে দেখতে পান। এ খবরের পর এলাকাবাসী ক্ষিপ্ত হলে এক পর্যায়ে সে স্বীকার করেন। কলাতলি পর্যন্ত রোহান তার সাথে গিয়ে পরে খোঁজে পাননি। এরপর ৯৯৯ এ কল করে পুলিশের কাছে তার সঙ্গে থাকা আরো দুজনসহ রাহিনকে হস্তান্তর করি।

ঝিলংজা ২ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মিজানুর রহমান বলেন, নিহত রোহানের পরিবার অত্যন্ত সহজ সরল আর গরিব। তার পরিবারের সাথে এমন ঘটনা মানা যায় না। এই ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তপূর্বক অপরাধীদের শাস্তির দাবী জানাচ্ছি।

এ বিষয়ে সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ রকিবুজ্জামান বলেন, এ ঘটনার পেছনে কে বা কারা জড়িত তা সনাক্ত করতে কাজ করছে পুলিশ।

আরও খবর

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

জনপ্রিয় সংবাদ

You cannot copy content of this page