Monday, May 20, 2024

তীব্র তাপদাহে হাহাকার: উখিয়ার কুতুপালংয়ে পথচারীদের ক্লান্তি মেটালো যে উদ্যোগ

বিশেষ প্রতিনিধি

” গরমে দুর্বল হয়ে পড়েছি, পুরো শরীর নাড়াতে পারছিলাম না। সেলাইন আর পানিতে একটু শক্তি পেয়েছি মনে হচ্ছে, এখন যাত্রী নিয়ে কক্সবাজার যাবো।”

কথাগুলো বলছিলেন উখিয়ার কুতুপালংয়ে অপেক্ষারত সিএনজি চালক মুক্তার আলী, ৫৫ বছরের শরীর নিয়ে চলা যার জীবিকায় বাঁধা হয়ে দাঁড়িয়েছে গ্রীষ্মের বৈরিতা।

ঘড়ির কাটায় বেলা ১ টা, পড়ন্ত রোদেলা দুপুরের উত্তপ্ততা জানান দিচ্ছে তীব্র তাপদাহের ভয়াবহতা।

মুক্তার আলী সহ গরমে অতিষ্ঠ হয়ে পড়া পথচারী, চাকরিজীবী সহ জনসাধারণের মাঝে ক্ষণিক তৃপ্তি এনে দিয়েছে ব্যতিক্রমী এক উদ্যোগ।

যেখানে নিজ অর্থায়নে খাবার পানি ( মিনারেল ওয়াটার) ও সেলাইন বিতরণের মাধ্যমে ৫ শতাধিক মানুষকে বিশেষ এই সেবা দিয়েছেন রাজাপালং ইউনিয়ন পরিষদের ৯ নং ওয়ার্ড এর ইউপি সদস্য হেলাল উদ্দিন।

এই উদ্যোগ প্রশংসা কুড়িয়েছে সেবা পাওয়া মানুষদের। তাহমিনা আক্তার নামে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে চাকরি করা স্থানীয় এক তরুণী জানান, ” আমার কর্মএলাকা রোহিঙ্গা ক্যাম্প, যেখানে স্বাভাবিকের চেয়েও বেশি তাপমাত্রা থাকে। এখন অবস্থা আরো ভয়াবহ। বাড়ি ফেরার পথে কিছুটা স্বস্তি পেয়েছি, এমন পরিস্থিতিতে এই উদ্যোগ আসলেই প্রশংসা পাওয়ার যোগ্য।”

হেলাল জানালেন, “সার্বক্ষণিক জন সম্পৃক্ত থেকে জনগণের জন্য কিছু করতে পারাটাই আমার জন্য সুখকর, আর সে কারণেই এই উদ্যোগ নিয়েছি। গরমে দুর্ভোগ পোহানো মানুষগুলোর চোখে মুখে সামান্য তৃপ্তি দেখেছি, তাতেই এই কার্যক্রমের সফলতা।”

তাপদাহ পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত এই কার্যক্রম চলতে থাকবে বলে জানান রাজাপালং ইউনিয়নের সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে আলোচনায় থাকা এই জনপ্রতিনিধি।

আরও খবর

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

জনপ্রিয় সংবাদ

You cannot copy content of this page