Sunday, May 26, 2024

রাত পোহালেই ঈদগাঁও ৫ ইউপিতে ভোট

নিজস্ব প্রতিবেদক:

প্রচার-প্রচারণা শেষ। দিন ঘনিয়ে রাত পোহালেই নতুন ভোরের আলোয় দেখা মিলবে ঈদগাঁও উপজেলার ৫ ইউনিয়নের সাধারণ নির্বাচন। ইতোমধ্যে নির্বাচন ঘিরে ব্যালট বাক্স,নির্বাচনী সরঞ্জামাদি, আনসার এবং প্রিজাইডিং অফিসারদের স্ব স্ব কেন্দ্র বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে। উপজেলার ইসলামপুর, পোকখালী, ইসলামাবাদ, জালালাবাদ, ঈদগাঁও ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ সাধারণ সদস্য ও সংরক্ষিত নারী সদস্যদের মধ্যে কে হাসবেন বিজয়ের হাসি সেজন্য অপেক্ষা করতে হবে আগামীকাল রবিবার (২৮ এপ্রিল) সন্ধ্যা পর্যন্ত।

নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা যায়, এবারের ঈদগাঁও উপজেলার ইসলামপুর, পোকখালী, ইসলামাবাদ, জালালাবাদ, ঈদগাঁও ইউনিয়নের মোট ভোটার সংখ্যা রয়েছে ৮৮ হাজার ৭ শত ৫৮ জন। তৎমধ্যে পুরুষ ভোটার ৪৮ হাজার, নারী ভোটার ৪০ হাজার ৫ পাঁচশত
১২ জন। এই পাঁচ ইউনিয়ন থেকে লড়ছেন ৪৬ জন চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী, ৭১ জন জন নারী সদস্য ও ২৫৮ জন সাধারণ সদস্য।

নির্বাচন রির্টানিং কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা বলেন, ৫ টি ইউনিয়নে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। ভোট গ্রহণের সকল প্রস্তুতি শেষ। এরই মধ্যে কেন্দ্রে কেন্দ্রে পৌঁছে গেছে ভোট গ্রহণের সকল সরঞ্জাম।

উপজেলা নির্বাচন অফিসার মোহাম্মদ হুমায়ুন কবীর জানান, ৪৭ টি কেন্দ্রে ভোট গ্রহণের জন্য পর্যাপ্ত পরিমাণ প্রিসাইডিং, সহকারী প্রিসাইডিং, পোলিং অফিসার নিয়োগ করা হয়েছে। নির্বাচনী সরঞ্জামও নিয়ে আসা হয়েছে। আইনশৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীর সহায়তায় প্রতিটি কেন্দ্রে পৌঁছে দেয়া হয়েছে নির্বাচনী কাজে নিয়োজিত কর্মকর্তাদের। এছাড়াও পৌঁছে দেয়া হয়েছে সরঞ্জমাদি। তিনি আরো বলেন, নির্বাচন অবাধ সুষ্ঠু নিরপেক্ষ হবে।কেউ কোনো ধরনের বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে চাইলে তাৎক্ষণিক আইনশৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনী পদক্ষেপ নিবে।

ঈদগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শুভ রঞ্জন চাকমা জানান, ঈদগাঁওবাসীর দীর্ঘদিনের স্বপ্ন পাঁচ ইউপি’র অবাধ সুষ্ঠু নিরপেক্ষ ও সংঘাত মুক্ত নির্বাচন।পুলিশের পক্ষ থেকে নেয়া হয়েছে সকল ধরনের প্রস্তুতি। ইতিপূর্বে বিভিন্ন থানা থেকে পুলিশ সদস্যদের আনা হয়েছে ঈদগাঁওতে। একই সাথে টহলে থাকবে বিজিবি, র‌্যাব। ওসি শুভ রঞ্জন চাকমা আরো জানান, প্রতি কেন্দ্রে ৫ জন পুলিশ, ১৭ জন আনসার সদস্য নিয়োজিত থাকবে। প্রতি ৩ কেন্দ্র মিলে একটি করে মোবাইল টিম, ৪ কেন্দ্র মিলে একটি করে স্ট্রাইকিং ফোর্স, ৫ ইউনিয়নে ১৫ টি মোবাইল টিম থাকবে। এছাড়া প্রতি ইউনিয়নে ২ জন করে ম্যাজিস্ট্রেট সার্বক্ষনিক নিয়োজিত থাকবে।

ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রের বিষয়ে জানতে চাইলে ওসি আরো বলেন, এবারের নির্বাচন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ, তাই প্রতিটি কেন্দ্রকে গুরুত্বপূর্ণ বিবেচনায় রাখা হয়েছে।

আরও খবর

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

জনপ্রিয় সংবাদ

You cannot copy content of this page