Saturday, April 20, 2024

২৭ বছরের ইমামতি থেকে অবসর, বর্ণাঢ্য বিদায় এলাকাবাসীর

নিজস্ব প্রতিনিধি

একটানা ২৭ বছর মসজিদে ইমামতি করেছেন মাওলানা আজিজুল্লাহ। জীবনের অর্ধেক সময় তিনি কাটিয়েছেন মধ্যম রাজুয়ার ঘোনা কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে। মসজিদটিতে ৩৩ বছর বয়স থেকে ইমামতি শুরু করেন। ষাটোর্ধ্ব বয়স এখন তাঁর। ২৭ বছর পর ইমামতি ও খতিবের দায়িত্ব পালন থেকে অবসর নিলেন তিনি। সম্মানের সাথে তাকে বিদায়ও দিয়েছেন এলাকাবাসী। সরকারি কর্মকর্তা কর্মচারীর বিদায় ছাড়া একজন ইমাকে সম্মানের সাথে বিদায় দেওয়ায় প্রশংসাও কুড়াচ্ছেন এলাকাবাসী।

মহেশখালী উপজেলার হোয়ানক ইউনিয়নের ৬নম্বর ওয়ার্ডের মধ্যম রাজুয়ার ঘোনা কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের ইমাম ও খতিব ছিলেন তিনি। বার্ধক্যজনিত কারণে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি নিয়েছেন । বিদায় বেলায় মুসল্লিদের ভালোবাসায় সিক্ত হয়েছেন এই ইমাম। বর্ণাঢ্য আয়োজনে মহেশখালীতে এ প্রথম বিদায় দেওয়া হয়েছে তাঁকে।

শুক্রবার (০১লা মার্চ) জুমার নামাজ শেষে মুসল্লি ও এলাকাবাসী ফুল দিয়ে ও গলায় ফুলেরর মালা পরিয়ে বরণ করে শুভেচ্ছা জানান। এক আবেগঘন পরিবেশে বিদায় মুহূর্তে মসজিদের পক্ষ থেকে তাঁকে সম্মানী হিসেবে দেওয়া হয় নগদ ৫০ হাজার টাকা।

মাওলানা আজিজুল্লাহ্ হোয়ানকে’র রাজুয়ার ঘোনা এলাকার মরহুম হাজ্বী আমির চান ও শামীমা বেগমে’র পুত্র। তিনি ১৯৮৭ সালে আল জামিয়া আল ইসলামিয়া (জমিরিয়া) পটিয়া মাদ্রাসা থেকে দাওরা হাদিস সম্পন্ন করেন। বর্তমানে তাঁর তিন ছেলে ও এক মেয়ে সন্তান রয়েছে। সবাই দাওরা হাদিস সম্পন্ন করেছেন।

এমন বিদায়ী সংবর্ধনা পেয়ে আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন মাওলানা আজিজুল্লাহ্। তিনি জানান, জীবনের দীর্ঘ সময় যাদের ইমামতি করেছি তাদের এমন আয়োজনে তিনি মুগ্ধ হয়েছেন। বাকি জীবনে সবার কাছে তিনি দোয়া চেয়েছেন।

মসজিদ পরিচালনা কমিটির সভাপতি সাবেক মেম্বার আবু বক্কর বলেন, আজকের দিনটি আমাদের জন্য বেদনার। মাওলানা আজিজুল্লাহ্ দীর্ঘ ২৭ বছর আমাদের দ্বীনি শিক্ষায় আলোকিত করেছেন। জীবন জুড়েই ইসলামের খেদমত করেছেন। আমি নিজেও উনার কাছে অনেক কিছু শিখেছি।

অত্র এলাকার বর্তমান মেম্বার আজিজুল্লাহ্ বলেন, আজকের দিনটি আমাদের জন্য বেদনার। কেননা আমরা আমাদের আত্মার আত্মীয়কে বিদায় দিচ্ছি।যিনি দীর্ঘ ২৭ বছর আমাদের দ্বীনি শিক্ষায় আলোকিত করেছেন। আমরা তাঁর কাছে কৃতজ্ঞ।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, মঈনুল ইসলাম মাদ্রাসার সাবেক মুহতামিম মাওলানা মমতাজুল ইসলাম, মসজিদ পরিচালনা কমিটির সেক্রেটারি মাস্টার সেলিম ও অর্থসম্পাদক মাস্টার রমজান আলী’সহ অত্র এলাকার মান্যগণ্য ব্যক্তিবর্গ।

মসজিদের নতুন নিয়োগ প্রাপ্ত ইমাম ছানা উল্লাহ্ বলেন, একজন বিদায়ী ইমামকে এমন সংবর্ধনা প্রশংসার দাবি রাখে। আমি মুসল্লিদের ধন্যবাদ জানাচ্ছি। আমি মনে করি, দেশের সব ইমামদের এমনভাবে সম্মান দেওয়া প্রয়োজন।

আরও খবর

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

জনপ্রিয় সংবাদ

You cannot copy content of this page