Sunday, May 26, 2024

পুলিশ পদক পেলেন কক্সবাজারের পুলিশ সুপার মাহফুজুল ইসলাম

নিজস্ব প্রতিনিধি:

সাহসিকতা, বীরত্বপূর্ণ অবদান এবং সেবামূলক কাজের জন্য পদক পেলেন ৪০০ জন পুলিশ কর্মকর্তা।
সোমবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) প্রধানমন্ত্রী তাদের পদক প্রদান করেন। এতে কক্সবাজারের পুলিশ সুপার মাহফুজুল ইসলাম তার সাহসিকতা,বীরত্বপূর্ণ অবদান ও সেবামুলক কাজের জন্য বাংলাদেশ পুলিশ পদক (বিপিএম) পেয়েছেন।

তিনি গত ২০০৬ সালের ২১ আগস্টে বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীতে সহকারী পুলিশ সুপার পদে যোগদান করেন। ২০২২ সালের ২৫ আগস্ট কক্সবাজার জেলায় পুলিশ সুপার হিসেবে যোগদান করেন। ২০২৩ সালে এক বছরে তিনি গুরুত্বপূর্ণ কাজ করেন।

যেসব কাজের জন্য বাংলাদেশ পুলিশ পদক পেলেন

পর্যটন নগরী কক্সবাজার শহরে পর্যটন সংশ্লিষ্ট সকল যানবাহন চালক ও গাড়ির স্মার্ট ডাটাবেস ‘কক্স-ক্যাব’ এর উদ্যোগ গ্রহনের মাধ্যমে বাংলাদেশের প্রধানতম পর্যটন শহরে নিরাপদ ও পর্যটন-বান্ধব স্মার্ট ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা প্রবর্তন করেন।

২০২৩ সালের আলোচিত ১০ মার্ডার

২০২৩ সালের ২৩ এপ্রিল কক্সবাজারের নাজিরারটেকে ১০ জন গলিত ও বিকৃত মৃতদেহ উদ্ধার করে লাশগুলো উদ্ধার, সুরতহাল, ডিএনএ প্রোফাইলিং করে স্বজনদের নিকট যথাসময়ে হস্তান্তর করা হয়। এ ঘটনায় জনৈক রোকিয়া আকতার বাদী হয়ে একটি মামলা করেন।মামলার পর ঘটনার মূল রহস্য উদঘাটন করে হত্যাকান্ডের মূল পরিকল্পনাকারী সুমনসহ ৯ জন আসামীকে গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করেন।
আসামীদের মধ্যে ৭ জন ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করে। উক্ত মামলার আরো ৩০ জন আসামীকে সনাক্ত করা হয়েছে।

মানবপাচার

মানবপাচার বিরোধী অভিযান পরিচালনা করে ১৫৬ জন ভিকটিম উদ্ধার করে ২৭টি মামলা রুজু এবং মামলার ১৬৭ জন আসামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

অবৈধ আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার

পুলিশ সুপারের দিক নির্দেশনায় অবৈধ আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার করার ফলে সারা বাংলাদেশে অবৈধ আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার কক্সবাজার জেলা “খ” গ্রুপে প্রথম স্থান অর্জন করেন। অবৈধ আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধারগুলো হলো- ৪টি পিস্তল, ৪৭টিএলজি, ১৫টি এক নলা বন্দুক, ১টি দুনলা বন্দুক , ২টি থ্রি-কোর্য়াটার বন্দুক, ১৫টি ওয়ানশুটারগান, ১টি পাইপগান, ১৮৬৫ রাউন্ড গুলি, ১২টি রাইফেলের গুলি, ৭৩ রাউন্ড কার্তুজ, ৩টি ভাঙ্গা গুলি, ৬টি গুলির খোসা, ২৮টি কার্তুজের খোসা, ৮টি দা, ২টি চাকু, ১টি হাতুড়ি, ১টি কোদাল, ১৯৩ টি অস্ত্র তৈরির সরঞ্জামাদি, ১ টি তলোয়ার, ১টি চাপাতি, ৩টি ছুরি, ৭টি কিরিচ, ১টি রাম দা, ১টি ম্যাগজিন এবং ২টি রড।

মাদক উদ্ধার

সারা বাংলাদেশে মাদক উদ্ধারে কক্সবাজার জেলা “খ” গ্রুপে ৩য় স্থান অর্জন করে। উদ্ধাকৃত মাদকদ্রব্য হলো- গাঁজা/গাঁজার গাছ ৩৭ কেজি ৮১৫ গ্রাম, বিয়ার ১৩৯০.৫০০ লিটার, বিদেশী মদ ৮১৯.৭০০ লিটার, ফেন্সিডিল ২.৫০০ লিটার, দেশী মদ ৮৯৪৩ লিটার উদ্ধার করেন।

ট্যুরিস্ট সার্ভিসের জন্য কক্স ক্যাব ও ওয়ান স্টপ ট্যুরিস্ট সার্ভিস

৮ হাজার রিক্সা-টমটম-ইজিবাইক চালকদের কোন তথ্য ট্রাফিক বিভাগ কিংবা সরকারি কোন সংস্থার কাছে নেই। তাছাড়া কক্সবাজারে আশ্রয় নেয়া ১২লক্ষাধিক মায়ানমারের বাস্তচ্যুত নাগরিকদের মধ্যেও অনেক রোহিঙ্গা জীবিকার তাগিদে পর্যটন এলাকায় এসে বাংলাদেশী পরিচয় দিয়ে গাড়ি চালায়। তার মধ্যে ৩৫০০ এর অধিক চালকের নাম, ছবি, মোবাইল নাম্বার, ব্লাড গ্রুপ, স্থায়ী ও বর্তমান ঠিকানাসহ তথ্য ইনপুট দেয়া হয়েছে। যার মাধ্যমে বিভিন্ন অপরাধ বা রোহিঙ্গামুক্ত চালক নিশ্চিত করা গেছে। এতে চালকের নাম ও ছবি, অন্য পাশে চালক ও গাড়ির তথ্য সম্বলিত কিউ.আর রয়েছে যা গাড়িতে দৃশ্যমান স্থানে ঝুলানো থাকে। কক্সবাজারে পর্যটন সংশ্লিষ্ট সকল তথ্য একটি প্ল্যাটফর্মে নিয়ে এসে “ ওয়ান স্টপ ট্যুরিস্ট সার্ভিস’ তৈরি করা হয়েছে।

আরও খবর

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

জনপ্রিয় সংবাদ

You cannot copy content of this page