Sunday, February 25, 2024

নিয়ম না মেনে কর্মকর্তা নিয়োগ হয় সিবিআইইউ’তে

আবদুর রশিদ মানিক

বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) নিয়মনীতি তোয়াক্কা না করে ডেপুটি রেজিস্ট্রার নিয়োগ দিয়েছে কক্সবাজার ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি (সিবিআইইউ) কর্তৃপক্ষ। গত ২২ জানুয়ারি নিয়মবহির্ভূতভাবে মাসুকুর রহমানকে ডেপুটি রেজিস্ট্রার হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের এক কর্মকর্তা এই অভিযোগ তোলেন।

ইউজিসির নিয়ম এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্ভিস রুল অনুযায়ী একজন ডেপুটি রেজিস্ট্রার হতে কমপক্ষে কোন স্বীকৃত বিশ্ববিদ্যালয়ে ৫ বছর সহকারী রেজিস্ট্রার হিসেবে কাজ করার অভিজ্ঞতা থাকতে হবে। নিয়ম হলো যদি পদ খালি হয় তবে বিজ্ঞাপন দিতে হবে দুইবার। একবার না পাওয়া গেলে দ্বিতীয়বার দিতে হবে। দ্বিতীয় বারেও না পাওয়া গেলে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনকে লিখিতভাবে জানাতে হবে যে আমরা যোগ্য কাউকে পাচ্ছি না। আমরা চুক্তি ভিত্তিক নিয়োগ দিতে চাচ্ছি। এরপর বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন যাচাই বাছাই করে সিদ্ধান্ত দিবে। কিন্তু কক্সবাজার ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ব্যাপারে এধরনের কোন সিদ্ধান্ত নেওয়াই হয়নি।

জানা গেছে, যে বিজ্ঞাপন এর ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে সেখানে ডেপুটি রেজিস্ট্রার চাওয়া হয়নি। এছাড়া নিয়োগ প্রাপ্ত ব্যক্তির অভিজ্ঞতা শুধুমাত্র ১ বছর তাও সহকারী অফিসার হিসেবে। নিয়োগ প্রক্রিয়ায় একটা নিয়োগ বোর্ড গঠন করতে হয়। এখানে তা করা হয়নি।

এসব নিয়মনীতি না মেনে কিভাবে ডেপুটি রেজিস্ট্রার নিয়োগ দেওয়া হল এটা নিয়ে ঘুরপাক খাচ্ছে বড় প্রশ্নবোধক চিহ্ন। এসব বিষয় নিয়ে ইউনিভার্সিটির উপাচার্য গোলাম কিবরিয়া ভুঁইয়ার সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি এবিষয়ে কথা বলতে রাজি হননি।

তবে বিশ্ববিদ্যালয়টির রেজিস্ট্রার (অতিরিক্ত দায়িত্ব) ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের প্রধান আতাউল্লাহ খালেদ জানিয়েছেন, বিষয়টি আমি অবগত নয়। আমি রেজিস্ট্রার না থাকাতে অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করছি। তবে এটা এ্যাডহক কমিটি চাইলে নিয়োগ দিতে পারে। হয়তো এ্যাডহক কমিটি এটা নিয়োগ দিয়েছে। আরও বিস্তারিত জানতে হলে জেনে জানাতে হবে বলে জানান তিনি।

এবিষয়ে জানতে ট্রেজারার প্রফেসর মোহাম্মদ তৌহিদের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি অফিসে যোগাযোগ করতে বলেন।

এদিকে ডেপুটি রেজিস্ট্রার ছাড়াও একইভাবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে সহকারী পরিচালক (অর্থ) শহীদুল ইসলাম চৌধুরীকেও। তার বেলায়ও নিয়োগ বোর্ড করা হয়নি। জানা গেছে, শহীদুল ইসলাম চৌধুরী আগে বেসরকারি সংস্থায় কর্মরত ছিলো। সেখান থেকে এনে পছন্দমতো ব্যক্তিকে বসিয়ে দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

এবিষয়েও বিশ্ববিদ্যালয়ের কেউ মুখ খোলেনি।

এছাড়াও কিছুদিন পর পর নিজেদের ইচ্ছায় নিয়োগ দেওয়া হয় শিক্ষক। শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রেও মানা হয়নি ইউজিসির কোন নির্দেশনা।

এসব বিষয় নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়টির দায়িত্বপ্রাপ্ত বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের পরিচালক ওমর ফারুখ বলেন, কক্সবাজার ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে ডেপুটি রেজিস্ট্রার নিয়োগের বিষয়ে কিছুই জানি না। জানানোও হয়নি। পুরো বাংলাদেশে ১১৪ টি বিশ্ববিদ্যালয় আছে কোথায় কি নিয়োগ হচ্ছে এসব তো খবর রাখা সম্ভব হয়না। বিশ্ববিদ্যালয়ে নিয়োগ কমিটি আছে, বোর্ড আছে তারা নিয়োগ দিবে। আর কোন অনিয়ম হলে সেটি ইউজিসি কর্তৃপক্ষ দেখবে। কোন অনিয়ম হলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আরও খবর

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

জনপ্রিয় সংবাদ

You cannot copy content of this page