Saturday, April 13, 2024

কক্সবাজার-৪: ভাঙতে পারে বদির সাম্রাজ্য!

বিশেষ প্রতিবেদক

দেশের আলোচিত সংসদীয় আসন গুলোর একটি কক্সবাজারের উখিয়া টেকনাফ নিয়ে গঠিত কক্সবাজার-৪ আসনটি। এখানে আওয়ামীলীগের দলীয় মনোনয়ন নিয়ে প্রার্থী হয়েছেন বর্তমান সংসদ সদস্য প্রার্থী শাহীন আক্তার। প্রার্থী শাহীন আক্তার হলেও, জনসভার মঞ্চ কাঁপিয়ে বক্তব্য দেয়া আর গণমাধ্যমের মুখোমুখি হওয়া- সবকিছুই করেন তার স্বামী আব্দুর রহমান বদি।

নির্বাচনের মাঠে স্বভাবতই আলোচিত হয় প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের বিভিন্ন বক্তব্য। কিন্তু এক্ষেত্রে শাহীন আক্তার প্রার্থী হলেও অনেকটা ‘আউট অফ লেন্স’ থাকেন। আর ক্যামেরার মূল ফোকাসে থাকেন বদি।

নিজের স্ত্রীকে কোথাও লক্ষ্মী, কোথাও বাপের বাড়ির কন্যা, আবার কোথাও শ্বশুর বাড়ির বউ হিসেবেই পরিচয় করান বদি।

অনেকের মতে, শাহীন আক্তারের দলের কোনো পদ-পদবী নেই। অনেকেটা বদির প্রভাবেই তিনি পরপর দুইবারের এমপি প্রার্থী হয়েছেন, কেবল বদি মামলার কারনে প্রার্থী হতে না পারায়। তাই নিজের স্ত্রীকে এমন ভাবে পরিচয় করানোটাও অনেকটা কৌশল।

তবে দীর্ঘদিনের আলোচিত বদির সাম্রাজ্য খ্যাত উখিয়া টেকনাফে এবার আঘাত আসতে পারে। আওয়ামীলীগের ভেতর থেকে বিশাল একটি অংশ নির্বাচনের মাঠ দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন ঈগল প্রতীকের প্রার্থী নুরুল বশরের হয়ে। তিনি টেকনাফ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি।

উচ্চ আদালতের রায়ে প্রার্থীতা ফিরে পেয়ে অনেক পরেই নির্বাচনের মাঠে আসেন বশর। সেই বশরকে পেয়েই বদি বিরোধী শিবির একাট্টা হয়ে নামে মাঠে।

বদিকে ইঙ্গিত করেই দলের নেতাকর্মীরা জানালেন তারা এবার ঐক্যবদ্ধ হয়েছেন মাদক ও চোরাচালান থেকে উখিয়া টেকনাফকে মুক্ত করার জন্য।

ইতোমধ্যেই বদি বিরোধী শিবিরে বশরের পক্ষে বেশ স্বোচ্ছার হয়ে মাঠে আছেন হলদিয়া পালং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইমরুল কায়েস চৌধুরী। তিনি বলেন, বদির সাম্রাজ্য মাদক আর অপরাধ জগতে। জনগণের কাছে তার সাম্রাজ্য নাই, গ্রহণযোগ্যতা নাই।

জেলা আওয়ামীলীগ সাবেক নেতা শাহ আলম বলেন, আমরা স্বৈরাচার বদিকে বদলাতে চাই। উখিয়া টেকনাফ থেকে বদি রোগ দূর করতে হবে।

উখিয়া আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি আদিল চৌধুরী বলেন, শাহীন আক্তারের নির্বাচনী প্রচারণায় আছে বিএনপির অনেক বড় নেতা। আর তাদের সাথে আমাদের বোঝাপড়ার সমস্যা। বিরোধিতা নয়।

স্ত্রীর সাইনবোর্ড ব্যবহার করে বদি ক্ষমতা খাটান বলে দাবী বদির স্বতন্ত্র প্রার্থী নুরুল বশরের। ঈগল মার্কার এই প্রার্থী বলেন, শাহীন আক্তার নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে দলীয়ভাবে কোনো কাজেও তাকে আমরা পাইনি। সরকারি কোনো কর্মসূচিতেও তাকে পাওয়া যায়নি৷ এমনকি জনগণও তাকে পায়নি।

উখিয়া টেকনাফের নতুন প্রজন্মকে মাদক মুক্ত করতে হলে এই নির্বাচন অনেক গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করেন নুরুল বশর।

এদিকে দলীয় নানান কারনে বদি শিবিরে যুক্ত হয়েছেন বদির বিরোধী শিবিরে থাকা অনেকেই। যাদের মধ্যে আছে জেলা যুবলীগের সাবেক সভাপতি সোহেল আহমেদ বাহাদুর ও বদির শ্যালক উখিয়ার রাজাপালং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরী। দুজনেই ছিলেন এবারে মনোনয়ন প্রত্যাশী। তারা মনোনয়নের আগে স্ত্রীকে ঘিরে বদির এমন কর্মতৎপরতার পরিবর্তন চেয়েছিলেন।

বুধবার সন্ধ্যায় উখিয়ার কোর্টবাজারে জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরীর সাথে সরাসরি একাধিকবার কথা বলার চেষ্টা করা হলেও তিনি এড়িয়ে যাওয়ায় সম্ভব হয়নি।

এছাড়াও কথা বলার চেষ্টা করা হয় আব্দুর রহমান বদি ও সংসদ সদস্য প্রার্থী শাহীন আক্তারের সাথেও৷ গণমাধ্যম কর্মী পরিচয় দেয়া হলেও তারা কথা না বলে দ্রুত গাড়িতে উঠে স্থান ত্যাগ করেন।

তবে বদি পুত্র শাওন আরমান বলেন, আমরা শতভাগ আশাবাদী বিজয়ের ব্যাপারে। উখিয়া টেকনাফে শাহীন আক্তারের কোনো বিকল্প নেই।

নৌকা প্রতীকের পক্ষে কাজ করা রাজাপালংয়ের ইউপি সদস্য হেলাল উদ্দিন বলেন, এখনই পরিবর্তনের কোনো প্রয়োজন আমরা দেখছিনা। উখিয়া টেকনাফে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে হলে অবশ্যই নৌকার বিজয় দরকার, আগামী ৭ তারিখ সেই বিজয় হবে।

সবমিলিয়ে কতোটুকু আঘাত আসছে বদির কথিত সাম্রাজ্যে কিংবা ঈগল নিয়ে কতোটুকুইবা উড়বে নুরুল বশর নাকি বদির রাজ্যে বদির বিকল্প কেবল বদিই? তা দেখতে অপেক্ষা করতে হবে আগামী ৭ জানুয়ারি পর্যন্ত।

আরও খবর

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

জনপ্রিয় সংবাদ

You cannot copy content of this page